Tech NewsTechnology Updates

সকল মোবাইল ব্যাংকিং এ জমানো টাকার উপর মিলবে ইন্টারেস্ট।

জমানো টাকার উপর মিলবে ইন্টারেস্ট

মোবাইল ব্যাংকিং মূলত বাংলাদেশের জন্য আশীর্বাদ স্বরূপ । এই শতাব্দীর প্রথমেও টাকা তুলার জন্য ঘন্টার পর ঘন্টা ব্যাংকে গিয়ে লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে হতো । মাসের শুরুতে ছেলেকে টাকা পাঠানো লাগবে ভেবে বাবা অশান্ত হয়ে যায় ; টাকা পাঠাতে হবে এই জন্য না বরং টাকা পাঠাতে যে কষ্ট আর ঝক্কি সেই কথা চিন্তা করেই অবসাদ লাগতো আগে অনেকেরই ।

আমাদের অনেক আগেই এই উক্ত ঝামেলা থেকে মুক্তি দিয়েছে মোবাইল ব্যাংকিং সার্ভিস গুলো । এখন গ্রামে গ্রামে মোবাইল ব্যাংকিং এজেন্ট রয়েছে । যখন ইচ্ছা তখন টাকা পাঠানো এখন আনা যায় এবং যেকোনো বিল পরিশোধ করা যায় এক নিমিষেই কোনো ঝামেলা ছাড়াই ।

জমানো টাকার উপর মিলবে ইন্টারেস্ট
জমানো টাকার উপর মিলবে ইন্টারেস্ট

রকেটের মাধ্যমে যে শুধুমাত্র টাকা লেনদেন করা যায় এমন কিন্তুও না । রকেটের মাধ্যমে মোবাইল রিচার্জ করা যায় , যেকোনো বিল পরিশোধ করা যায় , এমনকি টাকা জমাও রাখা যায় । ধরুন একজন ছাত্র টিউশনি করিয়ে টাকা জমাবে কিন্তু তার কোনো ব্যাংক একাউন্ট নেই , এখন সে চাইলে Rocket App এর মাধ্যমে রকেট একাউন্ট খুলে এখানে টাকা জমাতে পারবে । তবে এক্ষেত্রে অনেকেই জানতে চেয়েছেন যে , রকেটে জমানো টাকার উপর রকেট বা ডিবিবিএল কতৃপক্ষ কোনো ইন্টারেস্ট দেয় কিনা ।

জমানো টাকার উপর মিলবে ইন্টারেস্ট

আরো পড়ুনঃ

 ProtonVPN username and password free 2021 ( Updated )

দূভাগ্যবশত রকেটের এই রকম কোনো সুবিধা এখানো চালু হয়নি । তবে অন্যান্য মোবাইল ব্যাংকিং সার্ভিসের এই সুবিধাটি চালু রয়েছে । এক্ষেত্রে প্রথমে যার নাম আসে সেটি হলো বিকাশ । রকেট এদেশের প্রথম মোবাইল ব্যাংকিং সার্ভিস হলেও মূলত বাংলাদেশের মানুষ মোবাইল ব্যাংকিং সম্পকে জানে এবং বিকাশের মাধ্যমেই মোবাইল ব্যাংকিং সার্ভিস ঘরে ঘরে পৌঁছে যায় । Brack Bank এর এই সেবা চালু হয় ২০১১ সালেল জুলাই মাসে । সর্বপ্রথম বাংলালিংক এর মাধ্যমে বিকাশ সেবা দিতো এবং পরবর্তীতে সকল কোম্পানির সাথে যুক্ত হয়েছে । বিকাশেও রকেটের মতো মোবাইল রিচার্জ সহ যেকোন বিল পরিশোধ করা যায় সহজেই । তাছাড়া এখন বিকাশ অ্যাপের মাধ্যমে ঘরে বসেই খুব সহজেই একাউন্ট তৈরি করা যায় নিমিষেই ।

রকেট এবং বিকাশের মূল ব্যবহার এক হলেও বিকাশের কিছু বাড়তি সুবিধাও আছে । এবং এর মাধ্যমে জমানো টাকার উপর ইন্টারেস্ট হলো অন্যতম । টাকা পাঠানোর মাধ্যমে বিকাশে নিজের সঙ্গয় জমা রেখে আসনি অতিরিক্ত টাকা ইনকাম করতে পারবেন । আর বিকাশের এই ইন্টারেস্ট এর রেট বছরে ৪% হবে ।

আরেকটু খোলাসা করে বলতে গেলে , আসনার বিকাশ একাউন্টের ব্যালেন্স যদি ১,০০০ থেকে ৫০০০,৯৯ প্রর্যন্ত হয় তাহলে ইন্টারেস্ট হার হবে ১.৫% । আর যদি ৫,০০১ থেকৈ ১৫,০০০,৯৯ প্রর্যন্ত হয় তাহলে ইন্টারেস্ট হার হবে ২% । ব্যালেন্স বা স্লাব ১৫,০০১ থেকে ৫০,০০০,৯৯ প্রর্যন্ত হয় তাহলে ইন্টারেস্ট হার হবে ৩% এবং সর্বোপরি ৫০,০০১ এ্য অধিক ব্যালেন্স হলে ইন্টারেস্ট হার হবে ৪% ।

জমানো টাকার উপর মিলবে ইন্টারেস্ট

একটু সহজ ভাবে বলতে গেলে , ধরুন আপনার বিকাশে জানুয়ারি মাসে ১০০০ টাকি জমা ছিল এবং ওই মাসে আপনি ২ টি লেনদেন করেন এবং ঐ মাসের আপনার গড় বিকাশ বালেন্স ১০০০ থেকে ৫,০০০,৯৯ এর মধ্যে ছিল তাহলে আপনি জানুয়ারি মাসের গড় ব্যালেন্সের উপর ১.৫% বাৎসরিক ইন্টারেস্ট পাবেন ।

আরো পড়ুনঃ কিভাবে একজন ভালো বয়ফ্রেন্ড হতে পারেন ? ভালো বয়ফ্রেন্ড হওয়ার টিপস

তবে বিকাশ একাউন্ট খোলা থাকলেই যে আপনি ইন্টারেস্ট পাবেন এমনটি মোটেও নি । এর জন্য মানতে হবে কিছু শর্ত । যেমনঃ আপনার KYC FROM বিকাশ কর্তৃক গৃহীত হতে হবে এবং বিকাশ একাউন্ট সচল থাকতে হবে । পৃরতিমাসে আপনাকে ২ টি লেনদেন করতেই হবে বাধ্যতামূলক । যেমনঃ সেন্ডমানি , ক্যাসআউট , পেমেন্ট বা মোবাইল রিচার্জ যেকোনো মাধ্যমে ২ টি লেনদেন করতেই হবে । মাসের শেষদিন পর্যন্ত আপনার বিকাশে গড়ে ১০০০ টাকা থাকতেই হবে । এক্ষেত্রে মাস শেষে প্রতিদিনের গড় ব্যালেন্সের উপর আপনার ইন্টারেস্ট হিসাব করা হবে । সরকারি ভ্যাট ও ট্যাক্স কাটার পরে দুইবার আপনার একাউন্টে ইন্টারেস্ট প্রদান করা হবে বছরে ।

উপরক্ত এই শর্তগুলো পালন করলে বিকাশের সকল ইউজারই ইন্টারেস্ট পেতে পারেন । ইন্টারেস্ট এর জন্য আলাদা করে কোনো আবেদন করার প্রয়োজন হয় না । আর আপনি যদি ইন্টারেস্ট গ্রহন করতে না চান তবে বিকাশ হেল্পলাইন ১৬২৪৭ এ ফোন করে কাস্টমার কেয়ার এ কথা বলে বন্ধ করে নিতে পারবেন ।

জমানো টাকার উপর মিলবে ইন্টারেস্ট

মোবাইল ব্যাংকিং এ সবচেয়ে কনিষ্ঠ হলো নগদ । ২০১৮ সালের ১১ নভেম্বর বাংলাদেশের ডাক বিভাগ কর্তৃক এই মোবাইল ব্যাংকিং সার্ভিস চালু হয় । আর দেশের সবচেয়ে কম ক্যাসআউট চার্জ কম দেয় নগদ । প্রতি হাজারে ৯.৯৯ পয়সা বললেও ১৪.৫০ টাকা লাগে ক্যাসআউট চার্জ । এছাড়া নগদেও জমানো টাকার উপর ইন্টারেস্ট পাওয়া যায় সবচেয়ে বেশি হারে । নগদের ইন্টারেস্ট হার , আপনার একাউন্টে যদি ১০০১ থেকে ৫০০০.৯৯ টাকা জমা রাখেন তাহলে ইন্টারেস্ট হার হবে ৫.০% । টাকার পরিমাণ যদি ৫০০১ থেকে ৩ লক্ষ হয় তাহলে আপনার ইন্টারেস্ট হার হবে ৭.৫% । আর নগদের সবচেয়ে বড় সুবিধা হলো এখানে মাসিক ভিত্তিতে মুনাফা পাওয়া যায় । প্রতিদিনের হিসেবে মুনাফা হিসাব করে মাস শেষে ইন্টারেস্ট প্রদান করা হয় । তবে কোনো মাসে যদি আপনার একাউন্ট জনিত কোনো সমস্যা হয় তবে সেই মাসে মুনাফা পাওয়া যাবে না ।

নগদের ইন্টারেস্ট সেবাটি যদি আপনি বন্ধ করতে চান তবে নগদের হেল্পলাইন ১৬১৬৭ নাম্বারে কল করে কথা বলে বন্ধ করতে পারবেন কোনো ঝামেলা ছাড়াই ।

তো ভালো থাকুন , সুস্থ থাকুন এবং লকডাউনে ঘরে থাকুক ।।। ধন্যবাদ সবাইকে ।।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker